কলকাতা, সেপ্টেম্বর ২৬: ‘ভবিষ্যত শিক্ষাক্ষেত্রে এডটেকের ভূমিকা’ (Future of Education: Role of EdTech) নিয়ে আলোচনার জন্য ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স (Indian Chamber of Commerce – ICC) আয়োজন করল ৩য় এডটেক সামিট (3rd EdTech Summit)। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্র সরকারের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ডা. সুভাষ সরকার (Subhas Sarkar)।

ডা. সরকার বলেন, “জাতীয় শিক্ষা নীতি (National Education Policy-NEP) ভারতের পরিবর্তনের পথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে তা বলাই বাহুল্য। এটা ছোটখাটো পরিবর্তন নয়, বরং প্রশংসনীয় গভীর পরিবর্তন করছে যা দীর্ঘকালীন ভিত্তিতে রাষ্ট্রের ভবিষ্যতে স্থায়ী প্রভাব ফেলবে। আধুনিক এবং ঐতিহ্যগত জ্ঞানের একীকরণ খুব তৃপ্তির। দেখে আনন্দিত। শিক্ষা শুধু পুঁথিগত নয়, বরং শারীরিক ও সামাজিক উন্নয়ন সহ এক সামগ্রিক অভিজ্ঞতা, সেটা মানুষকে বোঝানো গেছে”।

সিস্টার নিবেদিতা বিশ্ববিদ্যালয়ের (Sister Nivedita University) ভাইস চ্যান্সেলর, ধ্রুবজ্যোতি চট্টোপাধ্যায় (Dhrubajyoti Chattopadhyay) বলেন, “এডটেক ভারতে উচ্চতর এবং স্কুল শিক্ষা উভয়ের পুনর্নির্মাণেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, বিশেষ করে মহামারী কোভিড ও পরবর্তী সময়ে। অ্যাক্সেস বেড়েছে সবার জন্য। আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (AI) এবং তথাকথিত শিক্ষার সমন্বয়ে এডটেক ভারতে শিক্ষার উজ্জ্বল ভবিষ্যত গঠন করছে”।

জেআইএস গ্রুপের (JIS Group) ডিরেক্টর এবং ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্সের (ICC) উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত জাতীয় বিশেষজ্ঞ কমিটির কো-চেয়ারম্যান, সর্দার সিমারপ্রীত সিং (Sardar Simarpreet Singh) বলেন, “এডটেক শুধুমাত্র একটা পদ্ধতি নয়, বরং শিক্ষার ভবিষ্যতের জন্য পরিবর্তনের অনুঘটক। আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টা, উদ্ভাবন এবং সহযোগিতাই উজ্জ্বল ভবিষ্যত তৈরি করতে পারে। একসাথে আমাদের একটা আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক শিক্ষার পরিকাঠামো তৈরি করতে হবে”।

Loading

Spread the love